পরিচালনা পর্ষদ

Board Of Directors

চেয়ারম্যান: খায়রুল আলম চৌধুরী
khairul-alam-choudhury

খায়রুল আলম চৌধুরী

চেয়ারম্যান

ব্যারিষ্টার খায়রুল আলম চৌধুরী এবি ব্যাংক লিমিটেড -এর সম্মানিত চেয়ারম্যান । তিনি ২০০১ সালে ইউনিভার্সিটি অফ উলভার হ্যাম্পটন , ইউকে থেকে স্নাতক ডিগ্রি র্অজন করেন । পরবর্তীতে, জনাব চৌধুরী ২০০২ সালে সিটি ইউনিভার্সিটি, ইউকে থেকে স্নাতকোত্তর এবং তিনি ২০০২ সালে লন্ডনের লিঙ্কনস্ ইন থেকে বার-অ্যাট-ল’ ডিগ্রি অর্জন করেন।

জনাব চৌধুরী বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের একজন সিনিয়র আইনজীবী।

পরিচালক: ফিরোজ আহমেদ
feroz-ahmed

ফিরোজ আহমেদ

পরিচালক

জনাব ফিরোজ আহমেদ এবি ব্যাংক লিমিটেডের একজন পরিচালক এবং বোর্ডের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান। এছাড়াও তিনি এলিট পেইন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং এলিট ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, হেক্সাগন কেমিক্যাল কমপ্লেক্স লিমিটেড এবং আহমেদ সিকিউরিটিজ সার্ভিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড ছাড়াও জনাব ফিরোজ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া ও জনসেবামূলক সংগঠনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে এড-হক নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে যুক্ত ছিলেন। এছাড়াও তিনি চট্টগ্রাম ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের একজন সদস্য, চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার আজীবন সদস্য এবং চট্টগ্রাম মহানগরী ক্রীড়া সংস্থার সদস্য। তিনি চট্টগ্রাম রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি এবং মা ও শিশু হাসপাতাল, চট্টগ্রাম-এর আজীবন সদস্য।

পরিচালক: সাজির আহমেদ

Shajir Ahmed
সাজির আহমেদ

পরিচালক

জনাব সাজির আহমেদ, ইউনাইটেড ওয়ার্ল্ড কলেজ অফ সাউথ ইস্ট এশিয়া, সিঙ্গাপুর থেকে ইন্টারন্যাশনাল ব্যাচালরেট (আইবি) বিষয়ে ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ২০০৮ সালে লন্ডন ইউনিভার্সিটির অধীনস্থ কিং কলেজ লন্ডন থেকে “ব্যবসা ব্যবস্থাপনায়” স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। তিনি ২০০৯ সালে, হাবিব ব্যাংক এজি জুরিখ, দুবাইয়ে সেন্ট্রাল একাউন্টস অফিসার হিসেবে প্রথম চাকরি শুরু করেন। ২০১০ সালে বাংলাদেশে ফিরে জনাব আহমেদ তাদের পারিবারিক ব্যবসা বিভিন্ন প্রকারের পেইন্টসের অগ্রণী প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এলিট পেইন্ট অ্যান্ড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন।

বর্তমানে, জনাব আহমেদ সুপার সিলিকা বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সুপার টেল লিমিটেড, সুপার ফিশ (প্রাঃ) লিমিটেড, এলিট সুপার প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ (প্রাঃ) লিমিটেড, সুপার শেয়ারস এবং সিকিউরিটিজ লিমিটেড, এলিট ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ব্রোস্ট ফুডস ইন্ডাস্ট্রিজ (প্রাঃ) লিমিটেড ও অরোরা ডেকোর লিমিটেড এর পরিচালক। জনাব আহমেদ ২০০৬ সালের জুন মাস থেকে বেসরকারি খাতের প্রথম প্রাকৃতিক গ্যাস কনডেনসেট রিফাইনারী “সুপার রিফাইনারী (প্রাঃ) লিমিটেডের” ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদও অলংকৃত করে রয়েছেন।

স্বতন্ত্র পরিচালক: শফিকুল আলম
mr-shafiqul-alam

শফিকুল আলম

স্বতন্ত্র পরিচালক

জনাব শফিকুল আলম গত ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ সালে এবি ব্যাংক লিমিটেড এর স্বতন্ত্র পরিচালক পদে যোগদান করেছেন। জনাব শফিকুল আলম,স্বনামধন্য ব্যাংকার হিসেবে বিগত ৪০ বছর ধরে দেশী- বিদেশীবিভিন্ন ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন দায়িত্বশীল পদে কর্মরত ছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

জনাব শফিকুলআলম ১৯৮০ সালে এএনজেড গ্রিনডলেজ ব্যাংক (বাংলাদেশ)-এ তাঁর কর্মজীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে তিনি প্রাইম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকেরঊর্ধ্বতন পদে কর্মরত ছিলেন এবং সর্বশেষে যমুনা ব্যাংকের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও পদে থেকে তিনি অবসর গ্রহণ করেন (২০১৩-২০১৯)।

প্রেসিডেন্ট এন্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর: তারিক আফজাল

Tarique Afzal
তারিক আফজাল

প্রেসিডেন্ট এন্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর

জনাব তারিক আফজাল ২০১৮ সালে ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর – কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স, আইনী ও নিয়ন্ত্রক বিষয়ক কার্যক্রমের প্রধান হিসেবে এবি ব্যাংকে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ৮ই জুলাই ২০১৯ তারিখে তিনি প্রেসিডেন্ট এন্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে মনোনীত হন।

এবি ব্যাংকে যোগদানের পূর্বে তিনি সোনালী পোলারিস ফাইন্যান্সিয়াল টেকনোলজি লিমিটেডের (সোনালী ব্যাংক ও পোলারিস, ভারতের যৌথ উদ্যোগ) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ছিলেন।

জনাব তারিক আফজাল নিজস্ব অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতা বলে বৈদেশিক কর্মক্ষেত্রেও সফল ছিলেন। ১৯৮০ এর দশকের শেষদিকে লন্ডনে, কানাডার ক্রেডিট ইউনিয়নে এবং পরবর্তীতে এএনজেড গ্রিন্ডলেজ ব্যাংক ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক বাংলাদেশে কর্মরত ছিলেন।

এছাড়াও তিনি ব্যাংক আলফালাহ ও ব্র্যাক ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন এবং ডান এন্ড ব্র্যাডস্ট্রীট রেটিং এজেন্সি, বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ছিলেন।

তাঁর প্রধান যোগ্যতার মধ্যে রয়েছে নতুন ব্যবসা প্রেক্ষাপট তৈরি, পরিচালন কার্যকারিতার উৎকর্ষ সাধন, কর্মীদক্ষতা উন্নয়ন এবং নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ সমূহের সাথে সম্পর্ক জোরদার করা।